জীবিকার তাগিদ

ফিরছে মানুষ ঢাকায়, পথে পথে কম নয় ভোগান্তি


প্রকাশিত:
১৬ মে ২০২১ ১৮:১০

আপডেট:
২০ জুন ২০২১ ১২:০৪

সড়কগুলোতে বেড়েছে গাড়ির সংখ্যা। বাড়ছে যাত্রীর সংখ্যাও। ঈদের ছুটি শেষে আজ রবিবার (১৬ মে) সকাল থেকে নগরীর প্রধান প্রধান সড়কে গত দুদিনের তুলনায় গণপরিবহনসহ বিভিন্ন ধরনের অধিক সংখ্যক যানবাহন চলাচল করতে দেখা যায়। যাত্রী সংখ্যা খুব বেশি না থাকলেও গত দুদিনের চেয়ে সংখ্যায় বেশি লক্ষ্য করা যাচ্ছে।

এদিকে ঈদের ছুটি শেষ হতে না হতেই রাজধানীর গাবতলী আমিন বাজার ও শালিপুর এলাকায় ফিরতি মানুষের ঢল নেমেছে।

যশোর, খুলনা, ঝিনাইদা, মাগুরা, রংপুর, কুষ্টিয়াসহ দক্ষিণ ও উত্তরবঙ্গের বেশিরভাগ লোকই আট দশজন মিলে মাইক্রোবাস রিজার্ভ করে আসছেন।

মো. সাইদুল  বলেন, গাজীপুর একটি কোম্পানিতে চাকরি করি, চার দিনের ছুটিতে মা বাবার সঙ্গে ঈদের আনন্দ উপভোগ করতে গিয়েছিলাম। ভোরে ১০ জনে মিলে গাবতলী পর্যন্ত একটি মাইক্রোবাস রিজার্ভ করে এসেছি। জনপ্রতি ২০০০ হাজার টাকা করে নিয়ে গাবতলী নামানোর কথা থাকলেও নামিয়েছে সাভারের শালিপুর এলাকায়, ওখান থেকে হেঁটে গাবতলী আসলাম।

সিলেট , মৌলভীবাজার শ্রীমঙ্গলের মানুষও ফিরছেন একইভাবে।উচ্চবিত্তরা প্রাইভেটকারে। মধ্যবিত্তরা মাইক্রোবাস ভাড়া করে আর নিম্নবিত্তরা ট্র্যাক ভাড়া করে। মুস্তাফিজ নামের এক পোশাক শ্রমিক অপারবাংলাকে বলেন, পথে পথে পুলিশের হয়রানি। চাঁদা দিতে হয়েছে। 

দারুসালাম থানার পিআই (পেট্রোল ইন্সপেক্টর) মোস্তফা কামাল  বলেন, আমাদের ডিউটি গাবতলী এলাকায় ২৪ ঘণ্টা আছে, তবে সকাল থেকে ঢাকায় ফিরতি মানুষের চাপ অনেক বেড়ে গিয়েছে, তবে আমরাও চেকপোস্ট বসিয়ে সতার্ক অবস্থায় আছি এবং মাস্কবিহীন কোনো মানুষকে আমরা ঢাকায় ঢুকতে দিচ্ছি না।



বিষয়:


আপনার মূল্যবান মতামত দিন:


এই বিভাগের জনপ্রিয় খবর
Top