সন্ত্রাসবিরোধী আইনে কাশ্মীরের মানবাধিকার কর্মী গ্রেফতার


প্রকাশিত:
২৩ নভেম্বর ২০২১ ১৪:১৪

আপডেট:
২৯ নভেম্বর ২০২১ ১১:২০

ভারত অধিকৃত কাশ্মীরের প্রখ্যাত এক মানবাধিকার কর্মীকে গ্রেফতার করেছে দেশটির আইনশৃঙ্খলাবাহিনী। প্রায় জামিন অযোগ্য ঔপনিবেশিক আমলের সন্ত্রাসবিরোধী আইনে কাশ্মীরের ওই মানবাধিকার কর্মীকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

ভারতের সন্ত্রাস-দমন সংস্থা এনআইএ খুররম পারভেজ নামের ওই মানবাধিকার কর্মীর বিরুদ্ধে ‘সন্ত্রাসবাদে অর্থায়ন’ এবং ‘ষড়যন্ত্রে’র অভিযোগ এনেছে।

ভারত-শাসিত কাশ্মিরে খুররম পারভেজের বাড়ি এবং অফিসে অভিযান চালানোর পর তাকে গ্রেফতার করেছে এনআইএ। গ্রেফতারের বিষয়ে এখনও কোনো মন্তব্য করেননি তিনি। তবে কাশ্মীরের প্রখ্যাত এই মানবাধিকার কর্মীকে গ্রেফতারের পর বিশ্বজুড়ে তীব্র ক্ষোভ এবং তার মুক্তির দাবি উঠেছে।

দেশটির মানবাধিকার কর্মী এবং সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের অন্যান্য ব্যবহারকারীরা খুররম পারভেজের গ্রেফতারের ঘটনাকে মানবাধিকার কর্মীদের কণ্ঠরোধ এবং শাস্তি দেওয়ার প্রচেষ্টা বলে নিন্দা জানিয়েছেন।

ভারতীয় জনতা পার্টি (বিজেপি) নেতৃত্বাধীন ভারতের ক্ষমতাসীন সরকারের কট্টর সমালোচক কাশ্মীরের এই মানবাধিকার কর্মী। কাশ্মীর-ভিত্তিক খুররমের বেসরকারি সংস্থা জম্মু কাশ্মীর কোয়ালিশন অব সিভিল সোস্যাইটি (জেকেসিসিএস) অতীতে উপত্যকায় মানবাধিকারের লঙ্ঘন এবং ভারতীয় নিরাপত্তা বাহিনীর অতিরিক্ত বলপ্রয়োগের খতিয়ান বেশ কয়েকটি প্রতিবেদনে তুলে ধরে।

কাশ্মীরসহ এশিয়ার বিভিন্ন দেশে আইনশৃঙ্খলাবাহিনীর হাতে সাধারণের মানুষের গুমের ঘটনা নিয়ে কাজ করে আসা আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থা এশিয়ান ফেডারেশন অ্যাগেইনস্ট ইনভোলানটারি ডিজঅ্যাপিয়ারেন্সেসের (এএফএডি) চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করছেন খুররম পারভেজ।

২০১৬ সালে জাতিসংঘের মানবাধিকার পরিষদের ৩৩তম অধিবেশনে যোগ দিতে সুইজারল্যান্ডে যাওয়ার ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে ভারত সরকার। নিষেধাজ্ঞার পরদিন তাকে গ্রেফতার করে দেশটির আইনশৃঙ্খলাবাহিনী। একই সঙ্গে তার বিরুদ্ধে দেশটির ব্যাপক বিতর্কিত জননিরাপত্তা আইনে অভিযোগ গঠন করা হয়। এই আইনে দেশটির আইনশৃঙ্খলাবাহিনী যে কাউকে কোনো ধরনের অভিযোগ ছাড়াই দুই বছর পর্যন্ত আটকে রাখতে পারে।

পরে আন্তর্জাতিক বিভিন্ন মানবাধিকার সংস্থার তীব্র সমালোচনা এবং ক্রমবর্ধমান চাপের মুখে দেশটির সরকার গ্রেফতারের ৭৬ দিন পর কাশ্মীরের এই মানবাধিকার কর্মীকে মুক্তি দেয়।

সোমবার এনআইএর তদন্তকারীরা খুররমের বাড়ি এবং কাশ্মিরের প্রধান শহর শ্রীনগরে জেকেসিসিএসের কার্যালয়ে তল্লাশি অভিযান পরিচালনা করে। প্রাথমিকভাবে তাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নেওয়া হলেও পরবর্তীতে সন্ধ্যার দিকে গ্রেফতার দেখানো হয়।

দেশটির বেআইনি কার্যকলাপ (প্রতিরোধ) আইনের বিভিন্ন ধারায় সরকারবিরোধী যুদ্ধে উসকানি এবং অপরাধমূলক ষড়যন্ত্র, সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড এবং সন্ত্রাসী সংগঠনের জন্য তহবিল সংগ্রহের অভিযোগ আনা হয়েছে খুররমের বিরুদ্ধে।

এদিকে, পারভেজ খুররমের গ্রেফতারের খবরে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন জাতিসংঘের মানবাধিকারবিষয়ক বিশেষ দূত ম্যারি ললোর। তিনি বলেছেন, পারভেজ খুররম সন্ত্রাসী নন। তিনি একজন মানবাধিকারের রক্ষক। অবিলম্বে তার মুক্তির দাবি জানিয়েছে জাতিসংঘের মানবাধিকারবিষয়ক এই কর্মকর্তা।

উপত্যকায় সম্প্রতি দুই বেসামরিক নাগরিকের প্রাণহানির ঘটনার পর ব্যাপক উত্তেজনার মাঝে কাশ্মীরের এই মানবাধিকার কর্মীকে গ্রেফতার করা হয়েছে।



বিষয়:


আপনার মূল্যবান মতামত দিন:


এই বিভাগের জনপ্রিয় খবর
Top