সাংবাদিক খাসোগির এক হত্যাকারী ফ্রান্সে গ্রেফতার


প্রকাশিত:
৭ ডিসেম্বর ২০২১ ২৩:৩৬

আপডেট:
২৯ জানুয়ারী ২০২২ ০০:৩৯

সৌদি সাংবাদিক ও দেশটির রাজনীতি ও শাসনব্যবস্থার সমালোচক জামাল খাসোগির এক হত্যাকারী ফ্রান্সে গ্রেফতার হয়েছেন। ফ্রান্সের সংবাদামাধ্যমগুলোর বরাত দিয়ে মঙ্গলবার এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে বিবিসি ও রয়টার্স।

বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, গ্রেফতার ওই ব্যক্তির নাম খালেদ আয়েদ আল ওতাইবি। ফ্রান্সের চার্লস ডি গল বিমানবন্দর থেকে মঙ্গলবার তাকে গ্রেফতার করেন আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা।

ফ্রান্সের আরটিএল রেডিওর এক প্রতিবেদনে বলা হয়, খাসোগি হত্যার সঙ্গে এ পর্যন্ত ২৬ জন ব্যক্তির সংশ্লিষ্টতা পাওয়া গেছে। আল ওতাইবি তাদের মধ্যে অন্যতম।

৩৩ বছর বয়স্ক আল ওতাইবি সৌদি আরবের সামরিক বাহিনীর এলিট শাখা সৌদি রয়্যাল গার্ডে কর্মরত ছিলেন। খাসোগি হত্যার পরপরই ফেরার হয়ে গিয়েছিলেন তিনি।

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, আপাতত ফ্রান্সের আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর হেফাজতে আছেন তিনি। যথাসময়ে তাকে আদালতে তোলা হবে।

যুক্তরাষ্ট্রে স্বেচ্ছা নির্বাসনে থাকা জামাল খাশুগজি ওয়াশিংটন পোস্টে নিয়মিত কলাম লিখতেন। সৌদি আরবের যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের কঠোর সমালোচক হিসেবে তিনি পরিচিত ছিলেন।

২০১৮ সালের ২ অক্টোবর বিয়ের জন্য প্রয়োজনীয় কাগজপত্র সংগ্রহ করতে ইস্তাম্বুলের সৌদি কনস্যুলেটে গিয়ে নিখোঁজ হন খাশুগজি। পরে জানা যায়, তাকে কনস্যুলেটের ভেতরেই হত্যা করে লাশ টুকরা টুকরা করে পুড়িয়ে ফেলা হয়েছে।

খাশুগজি হত্যাকাণ্ডে বিশ্বব্যাপী নিন্দার ঝড় উঠলে সৌদি যুবরাজের ভাবমূর্তিও দারুণভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়।

যুক্তরাষ্ট্রের গোয়েন্দা সংস্থা সিআইএর পক্ষ থেকেও বলা হয়, ওই খুনের আদেশ স্বয়ং যুবরাজ মোহাম্মদ দিয়েছেন বলে তাদের বিশ্বাস।

অবশ্য সৌদি কর্তৃপক্ষ এ ঘটনায় যুবরাজের জড়িত থাকার অভিযোগ বরাবরই অস্বীকার করে এসেছে। পাশাপাশি দেশটির সরকারের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, অন্য কোনো দেশের এজেন্টরা এই হত্যাকাণ্ডের জন্য দায়ী।

তবে তুরস্কের আইনশৃঙ্খলা ও গোয়েন্দা কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, এটি সত্য যে খাসোগিকে এজেন্টরাই হত্যা করেছে, কিন্তু এই হত্যার নির্দেশ এসেছিল সৌদি সরকারের উচ্চ পর্যায় থেকে।



বিষয়:


আপনার মূল্যবান মতামত দিন:


এই বিভাগের জনপ্রিয় খবর
Top