শিষ্যদের খেলায় মনোযোগের তাগিদ গুয়ার্দিওলার


প্রকাশিত:
৪ মে ২০২১ ০০:৪৩

আপডেট:
১৭ মে ২০২১ ০৬:১২

ফাইল ফটো

ম্যানচেস্টার সিটি প্রথম লেগে জিতে রয়েছে সুবিধাজনক অবস্থানে। হাতছানি দিচ্ছে প্রথমবার চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ফাইনালের মঞ্চে ওঠার। আরও সতর্ক পেপ গুয়ার্দিওলা। নিশ্চিত করতে চান দল যেন আত্মতুষ্টিতে না ভোগে, কঠিন সময় এলে দিশেহারা না হয়। তাই মনোযোগী থেকে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে লড়াইয়ের বার্তা শিষ্যদের দিলেন এই স্প্যানিশ কোচ।

সেমি-ফাইনালের দ্বিতীয় লেগে আগামী মঙ্গলবার বাংলাদেশ সময় রাত ১টায় ইতিহাদ স্টেডিয়ামে পিএসজির মুখোমুখি হবে সিটি। গত বুধবার প্যারিস থেকে ২-১ গোলের জয় নিয়ে ফেরা গুয়ার্দিওলার দল ফাইনালের পথে এগিয়ে আছে অনেকটাই।

ফাইনালে যেতে পারলে সিটি প্রতিপক্ষ হিসেবে পাবে রিয়াল মাদ্রিদ বা চেলসিকে। মাদ্রিদে সেমি-ফাইনালে এই দুই দলের প্রথম লেগের ম্যাচটি ১-১ ড্র হয়েছিল।

আগের দিন সংবাদ সম্মেলনে গুয়ার্দিওলা জানালেন, আরেকটি কঠিন লড়াইয়ের জন্য অপেক্ষা করছেন তিনি।

‘প্রথম লেগের মতো এই লেগও হবে কঠিন… তারা পরিকল্পনায় বদল আনতে পারে, তাদের কোচ খুবই বুদ্ধিমান। আমি জানি না তারা কী করতে যাচ্ছে। ফাইনালে যাওয়ার ইচ্ছা থাকাটা স্বাভাবিক, এর আগে আমরা কখনও সেখানে পৌঁছাইনি। ম্যাচটি বুঝে উঠতে আমাদের নিজেদের কাজে মনোনিবেশ করতে হবে, কঠিন সময়ে একসঙ্গে থাকতে হবে, এক সঙ্গে লড়তে হবে। আমরা আমাদের খেলা খেলার যথাসম্ভব চেষ্টা করব। আমাদের ভালোভাবে রক্ষণ সামলাতে হবে, ধৈর্য ধরতে হবে এবং গোল করার চেষ্টা করতে হবে।’

প্রথম লেগের ফল নিয়ে সতর্ক গুয়ার্দিওলা। দ্বিতীয় লেগ পেরুনো আরও কঠিন বলে মনে করেন তিনি। ‘আমার অভিজ্ঞতা বলে, সেমি-ফাইনালের ফিরতি লেগ সবসময় কঠিন। খেলার সময় প্রথম লেগের ফল মাথায় থাকে, ফলে ম্যাচটি জিততে কি করতে হবে তা আর মনে থাকে না। ব্যাপারটা সবসময় এমনই ছিল। কিন্তু ফাইনাল পুরোপুরি ভিন্ন।’

চলতি আসরে নকআউট পর্বে প্রতিপক্ষের মাঠে দারুণ পরফরম্যান্স করে আসছে পিএসজি। শেষ ষোলোর প্রথম লেগে বার্সেলোনাকে তাদেরই মাঠে ৪-১ গোলে উড়িয়ে দেওয়া দলটি পরের রাউন্ডে গতবারের চ্যাম্পিয়ন বায়ার্ন মিউনিখের মাঠ থেকে ফেরে ৩-২ গোলের জয় নিয়ে।

গুয়ার্দিওলার সংবাদ সম্মেলনে ঘুরেফিরে উঠে এলো ২০১৮-১৯ আসরের প্রসঙ্গও। প্রতিযোগিতার শেষ আটে সেবার প্রথম লেগে ১-০ গোলে জিতেও ফিরতি পর্বে টটেনহ্যাম হটস্পারের বিপক্ষে ৪-৩ গোলে হেরে বিদায় নিতে হয়েছিল সিটিকে। সেসময় টটেনহ্যামের কোচ ছিলেন পচেত্তিনো।

তবে সেই ম্যাচের প্রসঙ্গ এখানে অপ্রয়োজনীয় বলে মনে করেন বার্সেলোনা ও বায়ার্নের সাবেক কোচ গুয়ার্দিওলা। ‘এটা ভিন্ন ভিন্ন দল, ভিন্ন ভিন্ন পরিস্থিতি। এটা আমাদের অতীত স্মৃতির অংশ; সেখানে ভালো মুহূর্ত থাকে, থাকে হতাশার মুহূর্তও। সেটা ছিল আমাদের ব্যতিক্রমী একটা পারফরম্যান্স, তবে আমরা এগিয়ে যেতে পারিনি। এবার আমরা ফাইনালে ওঠার চেষ্টা করব।’



বিষয়:


আপনার মূল্যবান মতামত দিন:


এই বিভাগের জনপ্রিয় খবর
Top